Ceiling Fan – সিলিং ফ্যান নিয়ে নয়া ফরমান জারি করলো সরকার, না মানলে দিতে হবে ফাইন।

Ceiling Fan – বাড়িতে সিলিং ফ্যান থাকলে সাবধান, সিলিং ফ্যান নিয়ে কড়া নিয়ম জারি সরকারের।

ভারতবর্ষ গ্রীষ্ম প্রধান একটি দেশ। তাই এই দেশে বছরের বেশিরভাগ সময় সিলিং ফ্যানের (Ceiling Fan) উপর ভরসা করেই আমাদের থাকতে হয়। এই বৈদ্যুতিক যন্ত্র কিন্তু নিম্নবিত্ত থেকে উচ্চবিত্ত সকলের বাড়িতেই দেখতে পাওয়া যায়। এবার সেই সিলিং ফ্যানও নিয়মের যাঁতাকলে বদ্ধ হতে চলেছে। সরকারের পক্ষ থেকে নতুন খবর সামনে এসেছে। জেনে নিন সেই সম্পর্কেই।

Advertisement

বিগত কয়েক মাস ধরে নিম্নমানের পণ্যের বিরুদ্ধে অভিযান চালাচ্ছে কেন্দ্র সরকার। ইতিমধ্যে নিম্নমানের প্লাস্টিক পণ্য নিষিদ্ধ করা হয়েছে সরকারের তরফ থেকে। তারপর একে একে নিম্নমানের চার্জার ও ইউএসবি কেবেল সহ বিভিন্ন ইলেকট্রনিক আইটেম নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এমন পদক্ষেপ দেশের আমজনতার সুরক্ষার দিকে তাকিয়েই নেওয়া হয়েছে। এবার সরকারের নজর নিম্নমানের ফ্যানের বাজারের দিকে। ইতিমধ্যে কেন্দ্র সরকার নিম্নমানের সিলিং ফ্যানের (Ceiling Fan) জন্য গুণমানের মানদন্ড নির্ধারণ করেছে। আসলে কেন্দ্র সরকার এই মুহূর্তে চাইছে বৈদ্যুতিক পাখার অভ্যন্তরীণ উৎপাদন বাড়াতে। কিন্তু সেই উৎপাদন কখনওই নিম্নমানের হতে পারে না। তাই নিম্নমানের পাখার আমদানি রোধে এই বড় পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

চালু হল রাজ্য সরকারের নতুন প্রকল্প, পুজোর আগে বাংলার প্রত্যেকটি নারীকে শাড়ি দেবে সরকার।

কিন্তু এর পাশাপাশি নিম্নমানের ফ্লাস্ক ও প্লাস্টিক বোতলের গুণমান নিয়েও মানদণ্ড জারি করা হয়েছে। এই সব দ্রব্য তৈরির ক্ষেত্রে অবশ্যই বাধ্যতামূলকভাবে মানদন্ড মেনে চলতে হবে। সরকার স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিয়েছে, ইনসুলেটেড ফ্লাস্ক, বোতল ও পাত্রের গুণমান অবশ্যই নিয়ম মেনে হতে হবে‌। এছাড়াও অভ্যন্তরীণ উৎপাদনের প্রচারের সাথে গুণমানের হের ফের যেন না হয়। এবার আসা যাক বৈদ্যুতিক সিলিং ফ্যানের (Ceiling Fan) প্রসঙ্গে।

গত ৯ ই আগস্ট ডিপার্টমেন্ট ফর প্রমোশন অফ ইন্ডাস্ট্রি এন্ড ইন্টারনাল ট্রেড এই সম্পর্কে বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে। উক্ত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বৈদ্যুতিক ফ্যান (গুণমান নিয়ন্ত্রণ) আদেশ, ২০২৩ অনুযায়ী এবার থেকে পণ্যগুলিতে বিউরো অফ ইন্ডিয়ান স্ট্যান্ডার্ডস্ চিহ্ন থাকা বাধ্যতামূলক। এই চিহ্ন ছাড়া কোনও বৈদ্যুতিক পণ্য তৈরি, বিক্রি, সংরক্ষণ, ব্যবসা ও আমদানি করা যাবে না। তবে এই নিয়ম চালু হবে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের ৬ মাস পর থেকে। ততদিন পর্যন্ত বৈদ্যুতিক সিলিং ফ্যানের জন্য বিউরো অফ ইন্ডিয়ান স্ট্যান্ডার্ডস্ এর সার্টিফিকেট নিতে হবে।

এবার থেকে যদি কেউ এই নিয়ম লংঘন করে তাহলে ২ বছর পর্যন্ত কারাদণ্ড অথবা ২ লক্ষ টাকা পর্যন্ত জরিমানা হতে পারে। তবে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি যত বেশি নিয়ম লঙ্ঘন করবেন তাঁর জরিমানা ও শাস্তির পরিমাণ তত বাড়বে। সেক্ষেত্রে জরিমানার পরিমাণ ন্যূনতম ৫ লাখ টাকা ও বিক্রয় করা নিম্নমানের বস্তুর মূল্যের ১০ গুন পর্যন্ত হতে পারে। তবে দেশীয় অতি ক্ষুদ্র, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের প্রচারের জন্য এই ব্যবস্থা ১২ মাস পর থেকে কার্যকর হবে।

পুরনো 5 টাকার নোটে এই ছবি থাকলেই লক্ষী লাভ! রাতারাতি লাখ টাকা পাওয়ার সুযোগ।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button