Vote From Home – এইবারে বাড়িতে বসে ভোট দিতে পারবেন। কারা পারবেন ও কিভাবে পাবে জেনেনিন

লোকসভা ভোট চলছেই। আর এবার থেকে ভিড় লাইনে না দাড়িয়ে বাড়ি বসে ভোট বা Vote From Home এর সুবিধা চালু হলো। এবারের নির্বাচনে নির্বাচন কমিশন এমন এক সুবিধার কথা জানিয়েছেন যেটা জানলে আপনি অবাক হয়ে যাবেন। ভোট দেওয়া জনসাধারণের গণতান্ত্রিক অধিকার। ভারতীয় আইন অনুসারে ১৮ বছর বয়স হলেই একজন নাগরিক ভোট দেওয়ার অধিকার লাভ করেন। ভোট কেন্দ্রে গিয়ে এই ভোটদান পর্বটি সেরে ফেলতে হয়। কিন্ত এইবছর আপনি বাড়িতে বসেই ভোট দিতে পারবেন। এমনটাই সুযোগ করে দিচ্ছেন নির্বাচন কমিশন। তবে কারা সুযোগ পাবে জেনে নিন। একটি নির্দিষ্ট বয়সের পর থেকেই এই সুবিধা পাবেন জনগণ।

Advertisement

Vote From Home for Senior citizen

তবে কারা সুযোগ পাবে জেনে নিন। একটি নির্দিষ্ট বয়সের পর থেকেই এই সুবিধা পাবেন জনগণ। অনেক বয়স্ক ব্যক্তি আছে যাদের শারীরিক অক্ষমতা রয়েছে। সেইসাথে অসুস্থ রয়েছেন এমন ব্যক্তিদের পক্ষে ভোট কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দান খুবই সমস্যার। সেক্ষেত্রে অনেককেই দেখা যায় শারীরিক অসুস্থ্যতার জন্য ভোট দিতে যেতে পারেন না বলে তার নামের ভোটটি নষ্ট হয়ে যায়। কিন্ত যেহেতু ভোট দেওয়া সকল নাগরিকের অধিকারের মধ্যে পরে তাই নির্বাচন কমিশন এই ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন যে তাদের জন্য বাড়িতে ভোট দেওয়ার ব্যবস্থা করে দেওয়া হবে। বাড়িতে বসে ভোট দান করার এই পদ্ধতিকে বলা হয় হোম ভোটিং।

Advertisement

কারা পাচ্ছে এই বিশেষ সুবিধা

বিশেষভাবে সক্ষম মানুষরা, যাদের চল্লিশ শতাংশ অক্ষমতার সার্টিফিকেট আছে এবং ৮০ বছরের ঊর্ধ্বের বয়স্ক মানুষরা হোম ভোটিং বা Vote From Home পদ্ধতির মাধ্যমে বাড়িতে বসেই ভোট দেওয়ার সুবিধা পাবেন। আর কিছু দিন এর মধ্যেই ভোট হতে চলেছে, কী কী করতে হবে এই সুবিদ্ধা পেতে দেখেনিন।

কি করতে হবে এই সুবিধা পাওয়ার জন্য

নির্বাচন কমিশন থেকে বলা হয়েছে ভোটের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করার পাঁচ দিনের মধ্যে ১২ নম্বর ফর্ম পূরণ করে রিটার্নিং অফিসারের কাছে আবেদন জানাতে হবে। আবেদনপত্র টি ব্লক লেভেল আধিকারিক বা BLO আবেদনকারীর বাড়িতে গিয়েই সংগ্রহ করে আনবেন। আবেদনপত্র ছাড়াও বিশেষ ভাবে সক্ষম ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে তাদের শারীরিক অক্ষমতার প্রমাণ পত্র অর্থাৎ শংসাপত্রটি জমা করতে হবে আবেদনপত্রের সহিত। তাহলেই আপনি বাড়িতে বসেই ভোটদান পর্বটি সাড়তে পারবেন।

সবচেয়ে কম সুদে গৃহঋণ দিচ্ছে কোন ব্যাংক ? তালিকা দেখেনিন

হোম ভোটিং বা Vote From Home অর্থাৎ বাড়িতে বসে ভোট দান পদ্ধতির মাধ্যমে ভোট দান করার জন্য কত আবেদন পত্র জমা পড়ল সেই সম্পর্কে জানতে পারবেন নির্বাচন কেন্দ্রের বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের প্রার্থীরা। প্রয়োজনে কোনো রাজনৈতিক দলের সদস্যদের প্রতিনিধিরাও বাড়ি থেকে ভোট দান করার এই পদ্ধতিতে সাহায্য করতে পারবেন।

bank account - (ব্যাংক অ্যাকাউন্ট)

কিভাবে বাড়িতে বসে ভোটদান করতে পারবেন

ভোটের দিন আবেদনকারীদের বাড়িতে ভোট সংগ্রহ করার জন্য কমিশনের বেশ কয়েকজন আধিকারিক পৌঁছে যাবে। কোন সময় আবেদনকারীর বাড়িতে যাওয়া হবে সেই সময়টা আবেদনকারীকে আগে থেকেই জানিয়ে দেওয়া হবে। এছাড়াও কোন ভোট কর্মীরা আসবেন সেই বিষয়ে জানিয়ে রাখা হবে এস এমএস এর মাধ্যমে। ভোট কর্মীদের সঙ্গে পুলিশ পাহারা থাকবে সেইসাথে একজন ভিডিয়োগ্রাফার থাকবেন (Vote From Home).

লাগবে না ব্যাংকে যেতে!বাড়ি বসে মোবাইলেই বানিয়ে ফেলুন নিজের ও

বাড়িতে ভোটদান দিলেও সমস্ত গোপনীয়তা বজায় রেখে পুলিশি পাহারায় বাড়ি থেকে এই ভোট সংগ্রহ করা হবে।
তাই এখন থেকে যদি আপনি ভেবে থাকেন শারীরিক অসুস্থতা নিয়ে কিভাবে ভোট কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দেবেন সেই চিন্তা আর রইলো না। খুব আরামের সাথে বাড়িতেই এই সুযোগ করে দিচ্ছে নির্বাচন কমিশন। শুধু আপনি আবেদনপত্রটি ফিলাপ করে জমা দিয়ে দিন আর এই হোম ভোটিং এর সুবিধা গ্রহণ করুন (Vote From Home).
Written by Shampa debnath

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button