পূজোর পরই বাংলার 90 হাজার মহিলার একাউন্টে টাকা ঢুকবে। কারা টাকা পাবেন জেনে নিন।

বাংলায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য প্রকল্প হলো লক্ষ্মীর ভান্ডার (Lakshmir Bhandar Scheme). বিগত একবছরে এই লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পের (Lakshmir Bhandar Scheme) মাধ্যমে অনেক হাজার মহিলা উপকৃত হন। প্রত্যেক মাসে তাদের অ্যাকাউন্টে টাকা ঢোকে l ফলে যে সমস্ত মহিলাদের হাত খরচ ও অন্যান্য খরচ করতে পরিবারের অন্যদের কাছে টাকা চাইতে হয়, এখন আর সেটা চাইতে হয়না। এই লক্ষ্মীর ভান্ডারের প্রাপ্য অর্থ প্রত্যেক মাসে তাদের অ্যাকাউন্টে চলে আসে।

Advertisement

ঠিক তেমনি আগের বছরের পর এই বছর সেপ্টেম্বর মাসে দুয়ারে সরকার ক্যাম্প বসে কিছু স্কুলে। সেখানে গিয়ে যারা নাম নথিভূক্ত করেছে তাদের প্রত্যেকের অ্যাকাউন্টে টাকা ঢুকবে। দূর্গাপূজা পেরিয়ে লক্ষ্মী পূজার পর লক্ষ্মীর ভান্ডারের (Lakshmir Bhandar Scheme) টাকা অ্যাপ্লিকেশন করা মহিলাদের অ্যাকাউন্টে চলে যাবে। সেই কথাই দুর্গাপূজার ভার্চুয়ালি উদ্ধোধন করতে এসে জানালেন।

Advertisement

Lakshmir Bhandar Scheme payment status check.

এবছর সেপ্টেম্বর মাসে প্রায় ৯০ হাজার মহিলা লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পে (Lakshmir Bhandar Scheme) নাম নথিভূক্ত করেছিলেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এমন ঘোষনা শুনে লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পে আওতাভুক্ত নতুন নামকরণ কারীদের মুখে হাসির ছোঁয়া দেখা দিয়েছে।

Free Ration(ফ্রী রেশন)

সেপ্টেম্বর মাসে করা লক্ষ্মীর ভান্ডার আবেদনকারীদের টাকা যথাক্রমে ৫০০ ও ১০০০ টাকা করে নভেম্বর মাসের মধ্যেই ঢুকে যাবে। আর এটি হবে নতুন লক্ষ্মীর ভান্ডারের প্রকল্পে আবেদনকারীর প্রথম পাওয়া ভাতা। লক্ষ্মীর ভান্ডারের নতুন আবেদনকারীদের টাকা পাওয়ার পর এই লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রাপকদের মোট জনসংখ্যা ২ কোটির কাছাকাছি হতে চলছে। ফলে বিশ্বের দরবারে এই লক্ষ্মীর ভান্ডার খুবই জনপ্রিয় হয়ে উঠবে।

লক্ষ্মীর ভান্ডার পাওয়ার বয়সসীমা ৬০ বছর পর্যন্ত। তবে চিন্তা নেই ৬০ বছর পর নতুন নিয়মে একজন মহিলার নাম লক্ষ্মীর ভান্ডার থেকে বাদ হয়ে মুখ্যমন্ত্রী পরিচালিত আরেকটি প্রকল্প বার্ধক্য ভাতায় নাম পরিবর্তন হয়ে যাবে। তখন সেই অনুদানের পরিমাণ হয়ে দাঁড়াবে সবার জন্যই ১০০০ টাকা। এরফলে ৬০ বছর হয়ে গেলেও কোনও মহিলার দুশ্চিন্তার কোনো কারণ নেই, বরং যদি তিনি লক্ষ্মীর ভান্ডার (Lakshmir Bhandar Scheme) থেকে ৫০০ টাকা পেয়ে থাকতেন তাহলে বার্ধক্য ভাতায় আরও ৫০০ টাকা এক্সট্রা লাভ করবেন।

আরও পড়ুন, কেন্দ্রের পর এবার এই রাজ্যের সরকারি কর্মীদের ও ডিএ বৃদ্ধির ঘোষণা। কত টাকা বাড়ছে বেতন?

মুখ্যমন্ত্রীর এই ঘোষণার আগে সেপ্টেম্বর মাসের দুয়ারে সরকারে যারা নাম নথিভূক্ত করেছিলেন তারা মনে করেছিলেন পূজার আগেই তাদের জন্য বরাদ্দ টাকা ব্যাংকে ঢুকে যাবে যেমন আগের দুয়ারে সরকারে যাদের নাম লক্ষ্মীর ভান্ডারে ছিল তাদের অক্টোবরের টাকা পূজার আগেই দিয়ে দেওয়া হয়েছে। কিন্ত এখন মুখ্যমন্ত্রীর এই ঘোষণার পর সবার কাছে সম্পূর্ণ বিষয় পরিষ্কার হয়ে গেলো।

আরো পড়ুন, কষ্টের টাকা এই ৫টি প্রকল্পে বিনিয়োগ করুন।

তবে এটা ভেবেই তারা আশ্বস্ত ও নিশ্চিন্ত হয়েছেন যে মুখ্যমন্ত্রী স্বয়ং বলেছেন সেপ্টেম্বর মাসের দুয়ারে সরকারে লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্পে যারা নাম নথিভূক্ত করেছেন তাদের বরাদ্দ টাকা লক্ষ্মী পূজার পরেই ব্যাংক অ্যাকাউন্টে ঢুকে যাবে। এই নিয়ে কোনো চিন্তার কারণ নেই। তাই লক্ষ্মীপূজা পর্যন্ত অপেক্ষা করলেই খুশির খবর ব্যাংক অ্যাকাউন্টে পেয়ে যাবেন সেই সব মহিলা আবেদনকারী।
Written by Shampa Debnath.

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button