Post Office Scheme – পোস্ট অফিসের এই স্কিমে পাবেন অবাক করা রিটার্ন, একবার বিনিয়োগে সারা জীবন নিশ্চিন্ত।

আমাদের দেশে টাকা বিনিয়োগের জন্য Post Office Scheme বা পোস্ট অফিস স্কিম এর থেকে বেশি বিশ্বাসযোগ্য স্কিম আর নেই। দেশের নাগরিকদের কাছে সব থেকে নির্ভরযোগ্য ও বিশ্বস্ত আর্থিক প্রতিষ্ঠান হলো পোস্ট অফিস। এখানে যে কোনো ব্যক্তি খুব সহজেই অল্প টাকা জমা রেখে অনেক বেশি সুদ পেতে পারেন। আপনি চাইলেও আপনার সন্তানদের নামেও পোস্ট অফিসে বই করতে পারেন।

Advertisement

Fixed Deposit Post Office Scheme.

বর্তমানে পোস্ট অফিস অল্প বিনিয়োগ অনেক বেশি সুদ দিচ্ছে। আর তার জন্যই বহু মানুষ এখন পোস্ট অফিসে সেভিংস করতে পছন্দ করেন। বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিনিয়োগের পাশাপাশি এখনো কুরিয়ার সার্ভিস থেকে শুরু করে রেজিস্টার চিঠি ও গুরুত্বপূর্ণ জিনিসপত্র আদান প্রদানের ক্ষেত্রে পোস্ট অফিস (Post Office Scheme) গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। জেনে নেওয়া যাক পোস্ট অফিসের নতুন একটি স্কিম সমন্ধে।

Advertisement

পোস্ট অফিসের এই স্কিমে (Post Office Scheme) আপনার লাভের অঙ্কটা বেশ ভালই হবে। আপনি ৫ বছরে ৪ লাখ টাকা থেকে ৫ লাখ টাকার বেশি রিটার্ন পাবেন অর্থাৎ আপনি যা বিনিয়োগ করবেন তার চেয়ে রিটার্ন বেশ ভালই পাবেন। কারণ এই স্কিম সুদের পরিমাণ অনেকটাই। বেশিরভাগ মানুষ এখন ফিক্সড ডিপোজিট (Fixed Deposit) এর দিকে ঝোঁকেন। তারা অল্প বিনিয়োগ (Post Office Scheme) করে কিভাবে বেশি লাভ পাওয়া যায় এমন কোনো স্কিম আছে কিনা খোঁজ করেন।

আমরাই জানিয়ে দিচ্ছ পোস্ট অফিসও এমন সুযোগ আপনাকে দিতেই পারে। পোস্ট অফিসের একটি টাইম ডিপোজিট প্ল্যান আছে, যেখানে ৫ বছরে ১৪৫ শতাংশ পর্যন্ত রিটার্ন পাওয়া যাবে। কি ভাবছেন কিভাবে এতটা সম্ভব? জানিয়ে রাখা ভালো, চলতি বছরের ১ এপ্রিল থেকে নতুন সুদের হার ধার্য করা হয়েছে। পিপিএফ (PPF Post Office Scheme) ছাড়া প্রায় সব সেভিংস স্কিমের (Savings Scheme) সুদের হার ১০ থেকে ৭০ বেসিস পয়েন্ট বৃদ্ধি করা হয়েছে।

এরই মধ্যে পোস্ট অফিস একটি এমন প্রতিষ্ঠান যেখানে ১৪৫ শতাংশ সুদ দিচ্ছে ৫ বছরে। আর এই প্রতিষ্ঠান হলো একটি সুরক্ষিত আর্থিক প্রতিষ্ঠান। কোনো রকম টাকা নিয়ে প্রতারিত হওয়ার সম্ভাবনা নেই। তাই আপনি নিশ্চিন্তে এখানে বিনিয়োগ করতে পারেন। কেন্দ্রীয় সরকার শুধুমাত্র পোস্ট অফিসের (Post Office Scheme) ক্ষেত্রে ৫ বছরের জন্য আমানতের সুদের হার বাড়িয়েছে। বার্ষিক সুদের হার বার্ষিক ৭ থেকে ৭.৫০ শতাংশ পর্যন্ত বেড়েছে।

২০২৩ সালের নতুন নিয়ম অনুসারে, যদি কোনও ব্যক্তি পোস্ট অফিসে ১০ লাখ টাকা জমা দেন, তাহলে তিনি টাকা ম্যাচিউরিটির সময়ে অনেক মোটা অঙ্কের টাকা রিটার্ন (Post Office Scheme) পাবেন। প্রায় ১৪ লাখ ৪৯ হাজার ৯৪৮ টাকা। সুতরাং ৫ বছরে সুদ হিসাবে পাওয়া যাবে ৪.৫ লাখ টাকার বেশি। তবে আপনি চাইলে ১০,০০০ টাকার বিনিয়োগ ও করতে পারেন। তবে সে ক্ষেত্রে সুদের পরিমাণ কম হবে।

DA Hike (বকেয়া মহার্ঘ ভাতা বৃদ্ধি)

টাইম ডিপোজিট প্ল্যানে (Post Office Scheme Time Deposit) আপনি শুধুমাত্র ৫ বছরের জন্য নয়, চাইলে আপনি ১, ২, ৩ যেকোনো বছরের জন্য বিনিয়োগ করতেই পারেন। আবার আপনি যদি ১ বছরের জন্য বিনিয়োগ করেন। মেয়াদ শেষ হলে যদি আপনি মনে করেন আপনি আরো কয়েক বছর এর মেয়াদ বাড়াবেন, সেটাও করতে পারেন। তবে মনে রাখবেন যে কয় বছরের জন্য হোক মেয়াদ শেষের আগে আপনি টাকা তুলতে পারবেন না।

প্রাথমিক টেট পরীক্ষা নিয়ে বড় আপডেট, সকল পরীক্ষার্থীরা আজই জানুন।

আবার চাইলে জয়েন্ট অ্যাকাউন্টও খুলতে পারবেন। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ যেটা সেটা হলো আপনার বেশি রিটার্ন কম সময়ে তার জন্য পোস্ট অফিসের টাইম ডিপোজিট প্ল্যান (Post Office Scheme) একদম ভরসা যোগ্য প্ল্যান। তাই আপনি একবার করেই দেখতে পারেন। আর এই বিষয়ে আরও বিস্তারিত কোনো তথ্য জানতে আপনার কাছাকাছি পোস্ট অফিসে গিয়ে কথা বলতে পারেন। তারাই আপনার সমস্ত প্রশ্নের উত্তর দিয়ে দেবে।
Written by Shampa Debnath.

জনগনের সুবিধার্থে MyScheme Portal চালু করলো সরকার। কোন সরকারী প্রকল্পটি আপনার

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button