বাচ্চাদের কথায় কথায় ‘Sorry’ মানসিক রোগের লক্ষণ নয় তো?

আপনার বাচ্চাও অতিরিক্ত ‘Sorry’ বললে সাবধান হন এখনি।

আমরা সাধারনত বাচ্ছাদের অন্যায় করলে ক্ষমা চাইতে শেখা তা অন্যায় নয়। তবে অনেকে বড়রা আছেন যারা কথায় কথায় Sorry বলেন। তা দেখেই বাচ্ছারা শেখে এবং Sorry শব্দটির অতিরিক্ত ব্যাবহার করে থাকে। অতিরিক্ত কোনও জিনিসই ভালো না, তবে অনেকেই ঝামেলা এরিয়ে যাবার জন্য Sorry শব্দটির ব্যাবহার করে। সেটি ঠিক আগেই বলা হয়েছে অতিরিক্ত কোনও জিনিসই ঠিক নয়। কিন্তু আপনার সন্তানের অন্যায় না থাকলেও Sorry বলানো বন্ধ করুন। এতে তার বৃদ্ধিতে সমস্যা হতে পারে। বিশেশজ্ঞ রা এই বিষয়ে যে জিনিস গুলি অভিভাবকদের করতে বলেছেন তা নিচে বিস্তারিত বলা হল।

Advertisement

নিজেকে সম্মান করতে শেখান
বাচ্চাদেরকে অবশ্যই শেখান প্রতিবাদ করতে যদি প্রয়োজন পড়ে কোন অন্যায়ের অবশ্যই যেন তারা প্রতিবাদ করে সেখানে। ক্ষমা যাওয়া সব সময় ঠিক না যদি না নিজের অন্যায় থাকে। যদি দেখে তার তাকে কেউ অপমান করছে অবশ্যই জানো যথারীতি উত্তর দিয়ে সেই মানুষটিকে বুঝিয়ে দেয় তার নিজের মূল্যবোধ। সব সময় ক্ষমা চাওয়া সঠিক সমাধান নয়। এতে বিপরীতপক্ষ আপনাকে সম্মানের বদলে দুর্বলও ভাবতে পারে।

Advertisement

অপরকে সম্মান করতে শেখায়
একটা মানুষ তখনই অপর মানুষকে শ্রদ্ধা করে যখন সেই সমান শ্রদ্ধা তার বিপরীত মানুষের থেকে পায়। তাই বাচ্চাদের কেউ সম্মান করুন। বাচ্চাদের মন বেশিটা কৌতুক হয়ে থাকে। সেই সময় যাদের বুদ্ধি বিকাশ হয় এবং নানা প্রশ্ন জাগরণ হয় সেই সময় তাদেরকে সেই প্রশ্নের উত্তর যথা সম্ভব দেওয়ার চেষ্টা করুন কিছু সময় আপনি না জানলে পরে সেই সব তথ্য জেনে তাদেরকে জানান। আপনি যদি না জেনে থাকেন কোন তথ্য তবে তাদেরকে বলুন যে আপনি জানেন না কিন্তু ভুলটা অবশ্যই শেখাবেন না।

সন্তানের ভালোর জন্য তাদের ‘না’ বলা শিখতে হবে
বাচ্ছারা নিজেদের ইচ্ছা মতন বহু জিনিস আবদার করে থাকে তবে সবসময় তাদের চাইতেই সব জিনিস তৎক্ষণাৎ দিয়ে দেওয়াটা তাদেরই ক্ষতি করবে। আপনার সামর্থ্য থাকলেও কিছু সময় তাকে বুঝিয়ে ‘না’ বলুন কিংবা কিছুদিন পরে কিনে দেবেন সে কথা বোঝান, অপেক্ষা করতে শেখান।

অতিরিক্ত বকাঝকা এড়িয়ে চলুন
বাচ্চাদেরকে বকাঝকা একেবারে এড়িয়ে যাওয়ার প্রয়োজন নেই কারণ তাতে তারা আরও বিশৃঙ্খল হয়ে উঠবে তবে হ্যাঁ অতিরিক্ত মারধর বা বকাঝকা দিলে পরে বাচ্চারা আরো বেশি বেয়াদব হয়ে যেতে পারে। তারা যদি ভুল করে তবে যতটা পারবেন বুঝিয়ে ভুলগুলোকে শেখাবার চেষ্টা করুন। তবে হ্যাঁ কিছু সময় অতিরিক্ত বদমাইশি বা অতিরিক্ত অন্যায় দেখলে তাকে শাসন করুন যথারীতিভাবে। কারণ সব সময় তাদের বাজে ব্যবহার বা অত্যাধিক ভুল মেনে নেওয়া ঠিক নয়।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button