পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারি কর্মীদের জন্য বিরাট ঘোষণা। খুশির খবর পাওয়া গেল।

পশ্চিমবঙ্গের সরকারি কর্মীদের জন্য এক জরুরী ঘোষণা করলেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি (WB CM Mamata Banerjee). মহার্ঘ্য ভাতা বৃদ্ধি (DA Hike News) নিয়ে মিছিল মিটিং অবস্থান বিক্ষোভ থেকে এই মামলা এবারে সুপ্রিম কোর্ট (Supreme Court Of India) পর্যন্ত এসে দাঁড়িয়েছে। তবুও একাধিকবার শুনানির ডেট পরেও পিছিয়ে যাচ্ছে। ইতিমধ্যে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারি কর্মী সংগঠনের উদ্দেশ্যে স্পষ্ট বক্তব্য রাখলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এতদিন তার মুখে শুধুই শোনা গেছে রাজকোষ পর্যাপ্ত টাকা নেই DA বাড়ানোর মতন।

Advertisement

সরকারি কর্মীদের জন্য দারুণ খুশির খবর।

এদিকে কেন্দ্রীয় সরকার একের পর এক মহার্ঘ্য ভাতা বৃদ্ধি করে চলেছে কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীদের জন্য। সেই হারে মহার্ঘ্য ভাতা বৃদ্ধির দাবিতে সরব রাজ্য সরকারি কর্মচারীরা। যদিও পশ্চিমবঙ্গ বাদে কিছু রাজ্যে সরকার কর্মচারীদের জন্য মহার্ঘ্য ভাতা বৃদ্ধি করেছেন। তবুও পশ্চিমবঙ্গ সরকার তাদের কথায় অনড় রয়েছেন। কিছুদিন আগেই বিধানসভায় রাজ্য সরকারি কর্মীদের উদ্দেশ্যে মুখ্যমন্ত্রী বলেন কিছুটা কড়া ভাষায়।

Advertisement

মহার্ঘ্য ভাতা একটা অপশন মাত্র, এটা দেওয়া সরকারের বাধ্যতামূলক নয়। এছাড়া আরও বলেন যদিও মহার্ঘ্য ভাতা বৃদ্ধি করা যেত কিন্ত বাম আমলের সরকারের করা খরচ শোধ করতে গিয়েই রাজকোষ টান পড়ছে। কেন্দ্রীয় সরকারের মহার্ঘ্য ভাতা বৃদ্ধিকে নিয়েও কিছুটা উপহাস করে বলেন কেন্দ্রীয় সরকার কর্মীদের (Government Employees) ছুটি দেন না, কিন্ত রাজ্য সরকার প্রতিটি ধর্মীয় সম্প্রদায়ের যে কোনো অনুষ্ঠান থেকে শুরু করে সব উৎসব গুলোতে ছুটি ধার্য্য করেন। যেটা কেন্দ্রীয় সরকার গুনে গুনে সরকারি কর্মীদের ছুটি দেন।

এহেন বিস্ফোরক মন্তব্য শুনে রাজ্য সরকারি কর্মী সংগঠন পাল্টা জবাব দিয়েছিলেন। তারাও এই সরকারকে আর চায়না সেটাই স্পষ্ট ভাবে জানিয়ে দিয়েছিলেন। এর সাথে তারাও থেমে থাকবেনা। মহার্ঘ্য ভাতা বৃদ্ধি না হওয়া পর্যন্ত এই লড়াই চালিয়ে যাবেন এমনও শোনা যায়। এদিকে এই সময় মুখ্যমন্ত্রী উত্তরবঙ্গ সফরে গেছিলেন সেখানে অধিবেশনে জিটিএ কর্মীদের জন্য একটি বিশেষ বার্তা দিয়েছেন তিনি।

জিটিএ কর্মীদের গ্র্যাচুইটি (Gratuity) এবং লিভ এনক্যাশমেন্ট সহ একাধিক বিষয় নিয়ে খুশির ঘোষনা করলেন। যা শুনে রীতিমত খুশি জিটিএ কর্মীরা। মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষনা সূত্র মারফত, জানা যায় শুক্রবার কার্শিয়াঙে এক সরকারি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল। সেই অধিবেশনে তিনি বক্তব্য রাখার সময় বলেন এবার থেকে জিটিএ কর্মীরা অবসর গ্রহণ করলে তারা ২০ লক্ষ টাকা করে গ্র্যাচুইটি (WB Employees Gratuity) পাবেন।

SBI Charges (স্টেট ব্যাংকে ডেবিট কার্ড চার্জ)

এছাড়াও অবসরের সময় ১০ মাসের লিভ এনক্যাশমেন্টেরও সুবিধা পাবেন। তবে এই সুবিধা জিটিএ-র স্থায়ী কর্মীদের ক্ষেত্রে কার্যকর হবে। যারা অস্থায়ী কর্মী তারা এই সুবিধা পাবেন না। এখানেই শেষ নয়, নতুন নিয়ম নীতি চালু হবে বেতনের ক্ষেত্রে। জিটিএর স্থায়ী কর্মীদের বেতন ২০০৯ ও ২০২১ সালের বেতন নীতি অনুযায়ী পরিবর্তন করে নতুন হারে বেতন দেওয়া হবে ২০২৪ থেকে।

ট্রেনের সময়সূচীতে বড় পরিবর্তন আনল ভারতীয় রেল। যাত্রীদের অনেক সুবিধা হবে।

এই খবর শুনে রীতিমত খুশি জিটিএ কর্মীরা। এদিকে রাজ্য সরকারি টিচার্স ও আরও কিছু কর্মী সংগঠন অপেক্ষারত ফেব্রুয়ারির শুনানির দিকে। মুখ্যমন্ত্রীর মহার্ঘ্য ভাতা বৃদ্ধি নিয়ে কোনো মন্তব্য পরিবর্তন হবে কিনা সেই আশাতেই অপেক্ষারত রাজ্য সরকারি কর্মী সংগঠন। কিন্তু সরকারি কর্মীরা আগামীদিনে এই আন্দোলনের ঝাঁঝ আরও বাড়াবে বলে মনে করছেন অনেকে।
Written by Shampa Debnath.

Rojgar Mela 2023 : রোজগার মেলায় আরও 51000 জনকে সরকারী চাকরি দেবে। পশ্চিমবঙ্গের

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button