Primary Tet – বাড়ানো হলো প্রাইমারি টেট পরীক্ষার আবেদনের সময়সীমা, জানুন লাস্ট ডেট কবে?

Primary Tet – কীভাবে আবেদন করবেন? জানুন বিস্তারিত।

টেট নিয়ে যখন রাজ্য রাজনীতি উত্তাল, যে প্রাথমিক শিক্ষক (Primary Tet) নিয়ে নিয়োগ দুর্নীতি ও রাস্তায় মিছিল মিটিং। এছাড়া এখনো কোর্টে বিচারাধীন সেই মামলা। তারমধ্যেই নতুন করে কিছুদিন আগেই টেট এক্সামের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে মধ্যশিক্ষা পর্ষদ। আগামী ১০ই ডিসেম্বর টেট এক্সাম হওয়ার কথা।

Advertisement

একের পর এক চাকরি পরীক্ষার (Primary Tet) খবর শোনা যাচ্ছে। কিছুদিন আগেই প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ থেকে প্রাইমারি টেট এক্সামের ঘোষনা করা হয়। পরীক্ষার দিন ঠিক হয় ১০ই ডিসেম্বরে। তার জন্য আবেদন প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার কথা ১৪ই সেপ্টেম্বর থেকে এবং শেষ দিন ছিল ৪ঠা অক্টোবর। বলাও ছিল যদি আবেদনের কোনো সমস্যা দেখা দেয় সেক্ষেত্রে আবেদনের দিন বাড়ানো হতে পারে।

Advertisement

অবশেষে স্বস্তি! 5 শতাংশ ডিএ বাড়ছে সরকারি কর্মীদের। এই মাত্র জারি হল বিজ্ঞপ্তি।

ইতিমধ্যে অনেক আবেদন জমা পড়লেও আগের বারের চেয়ে ৫০ শতাংশ কম আবেদন জমা পড়েছে। এটাই চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। তবে এবার প্রাথমিক শিক্ষা (Primary Tet) পর্ষদ থেকে বি এড পাশ করা প্রার্থী পরীক্ষায় বসতে পারবে না। শুধু ডি এড বা প্রাইমারি স্কুলে পড়ানোর জন্য কোনো কোর্স করা থাকলে তারা এই পরীক্ষায় বসার জন্য আবেদন করতে পারবেন। সেই দিক দিয়ে অনেকটাই কম সংখ্যক প্রার্থী এবার টেট দেবে।

কিছু জন আবেদনের সময় ভুল ত্রুটি হওয়ার জন্য শিক্ষা দপ্তরে আবেদন করেছিল আবেদনের সময়সীমা বর্ধিত করার জন্য। সেইমত প্রাথমিক শিক্ষা (Primary Tet) পর্ষদ ৮ই অক্টোবর রাত অবধি সময় বাড়িয়েছে। তাই কেউ যদি এখনো আবেদন না করে থাকে, বা প্রথমবার করতে গিয়ে কোনো কারণে ভুল হয়ে থাকে আবারেকবার সুযোগ আছে আবেদন করার।

এবারও যারা টেট (Primary Tet) দেবে সবাই তাকিয়ে টেট যেন সঠিক ভাবে নেওয়া হয়। প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদও এবার কোনো গাফিলতি চায়না। তার জন্য পরীক্ষা কেন্দ্রে কড়া নজরদারি, সি সি টিভি ক্যামেরা দেওয়া হচ্ছে। এছাড়া কোনো ভাবে যাতে প্রশ্নপত্র বাইরে প্রকাশ না হয় সেদিকে নজর দেওয়া হচ্ছে। এরফলে চাকরি প্রার্থীদের মনে নতুন আশার সঞ্চার দেখা যাচ্ছে। এবারে হয়তো তাদের ভাগ্যের চাকা ঘুরলেও ঘুরতে পারে। তাই সময় থাকতে আবেদন করে ফেলুন। শেষ সময় ৮ই অক্টোবর।
Written by Shampa Debnath

পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারি কর্মীরা এই কাজ না করলে বন্ধ সরকারি সার্ভিস। রাজ্য সরকারের কড়া নির্দেশিকা জারি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button