স্টুডেন্ট ইন্টার্নসিপে প্রশিক্ষণ দিয়ে ৬০০০ চাকরির সুযোগ দিচ্ছে রাজ্য সরকার।

২০২৩ সালে রাজ্যের সকল বেকারদের জন্য স্টুডেন্ট ইন্টার্নসিপ সুযোগ নিয়ে হাজির হল পশ্চিমবঙ্গ সরকার। ৬০০০ চাকরির সুযোগ। দেখে নিন বিস্তারিত আলোচনা। আমদের রাজ্য থেকে শুরু করা সারা দেশে বর্তমানে বেকার নাগরিকদের সংখ্যা প্রতিদিন বেড়েই চলেছে। এক পরিসংখ্যান অনুসারে সারা দেশে প্রায় ৫ কোটি ৩০ লক্ষ যুবক – যুবতী কর্মহীন অবস্থায় বাড়িতে বসে আছে।

Advertisement

স্টুডেন্ট ইন্টার্নসিপে নিজের নাম নথিভুক্ত করবেন কীভাবে দেখুন।

এই হিসাবে আমাদের পশ্চিমবঙ্গের তুলনা করলে খুব একটা ভাল ফল পাওয়া যাবে না। রাজ্যে বেকারদের হার ৫.৪৩% হয়ে গেছে। এই পরিস্থিতিতে সকলকে বাঁচাতে এগিয়ে এসেছে রাজ্য সরকার। আজকে আমরা এরকমই এক প্রকল্প নিয়ে কথা বলতে চলেছি। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর উদ্যোগে “উৎকর্ষ বাংলা”, “আমার কর্মদিশা” নামক প্রকল্পের সূচনা করা হয়েছিল।

Advertisement

এই দুই প্রকল্পের মাধ্যমে রাজ্যের সকল ছাত্র – ছাত্রীদের কারিগরি শিক্ষা সহ নানা বিষয়ে প্রশিক্ষণ দিয়ে পক্ত করে কর্মের সুযোগ নিয়ে আসা। এছাড়াও সরকারের ইচ্ছে রাজ্যের নাম সই থেকে উচ্চ শিক্ষিত সকলের জন্য চাকরির ব্যবস্থা করা। এই আলোচনায় আমরা “স্টুডেন্ট ইন্টার্নসিপ” নামক প্রকল্প সম্পর্কে আলোচনা করতে চলেছি। মনোযোগ সহকারে শেষ অব্দি এই আলোচনাটি শুনবেন। এর ফলে উপকৃত হতে পারেন আপনিও।

Bandhan Bank এ চাকরির সুযোগ বেতন শুরু 15 হাজার থেকে, সময় খুব কম।

“স্টুডেন্ট ইন্টার্নসিপ” নামক প্রকল্পের মাধ্যমে রাজ্যের চাকরি প্রার্থীরা অনেক সুযোগ – সুবিধা পেতে চলেছেন। এই প্রকল্পে নিজেদের নাম নথিভুক্ত করলে সকলে বিনামূল্যে ট্রেনিং পেয়ে বিভিন্ন কাজের সুযোগ পেয়ে যাবেন। এছাড়াও ট্রেনিং চলাকালীন প্রতি মাসে ৫০০০ টাকা রোজগার করার সুযোগ পেয়ে যাবেন। ট্রেনিং শেষে হয়ে যাওয়ার পরে রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে সকল উত্তীর্ণ প্রার্থীদের কাজের সুযোগ দেওয়া হবে বলে জানা যাচ্ছে। এর জন্য আপনার যোগ্যতা, পদ্ধতি, সুবিধা সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

স্টুডেন্ট ইন্টার্নসিপে আবেদনের জন্য যোগ্যতা কি লাগবেঃ-
১. আবেদনকারীকে মুল রূপে পশ্চিমবঙ্গের নাগরিক হতে হবে।
২. প্রত্যেককে স্নাতকোত্তর পাস করতে হবে এবং ৬০% নম্বর পাওয়া বাধ্যতামূলক।
৩. যেই সকল পড়ুয়ারা কোন স্নাতক কোর্সে ভর্তি হননি কিন্তু অন্য কোন কারিগরি শিক্ষা নিয়ে পড়াশুনা করেছেন তারাও এই প্রশিক্ষণ নিতে পারবেন।
৪. আবেদনকারীর বয়স ১৮-৬০ বছরের মধ্যে হতে হবে।

স্টুডেন্ট ইন্টার্নসিপ প্রকল্পের মাধ্যমে কি সুবিধা পাবেনঃ-
১. ট্রেনিং চলাকালীন প্রতিমাসে সরকারের পক্ষ থেকে ৫০০০ টাকা করে সরকারের পক্ষ থেকে দেওয়া হবে।
২. এই প্রশিক্ষণ আপনাকে বিনামূল্যে দেওয়া হবে।
৩. প্রশিক্ষণ শেষে সকলকে প্রমানপত্র দেওয়া হবে।
৪. যেই সকল প্রার্থীরা ভাল করে ট্রেনিং নেবে তাদের রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে।
৫. সারা রাজ্য জুড়ে ৬০০০ জনকে চাকরি দেওয়া হবে সরকারের তরফে।

স্টুডেন্ট ইন্টার্নসিপে কীভাবে আবেদন করবেনঃ-
১. এই প্রকল্পের আবেদন সম্পূর্ণ অনলাইনের মাধ্যমে করতে হবে।
২. WWW.WB.GOV.IN এই ওয়েবসাইটে যেতে হবে।
৩. এর পরে স্টুডেন্ট ইন্টার্নসিপ অপশনে ক্লিক করতে হবে।
৪. নিজের নাম, ঠিকানা, জন্মের তারিখ, শিক্ষাগত যোগ্যতা, ফোন নম্বর, ই মেল আইডি দিয়ে দিতে হবে। এক কপি ফটো ও স্বাক্ষর তুলে স্ক্যান করে আপলোড করতে হবে।

স্টুডেন্ট ইন্টার্নসিপে কী কী ডকুমেন্ট লাগবেঃ-
১. বয়সের প্রমানপত্র হিসাবে মাধ্যমিকের অ্যাডমিট কার্ড লাগবে।
২. এই আবেদনের জন্য আধার কার্ড থাকা বাধ্যতামূলক। এর সঙ্গে ভোটার কার্ড থাকতে হবে।
৩. সকল যোগ্যতার মার্কসিট ও প্রমানপত্র।
৪. এক কপি রঙিন ফটো।

মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে আরো 30 হাজার নতুন চাকরী, পুজোর আগে দ্রুত নিয়োগ শেষ করার নির্দেশ।

এই প্রকল্পের জন্য আবেদন অনেক দিন আগে শুরু হয়ে গেছে আপনারা এখনি আবেদন করে ফেলুন। কিন্তু এর কোন শেষ সময়সীমা নেই। এই নিয়ে আপনাদের মন্তব্য নিচের কমেন্ট বক্সে জানাবেন। পছন্দ হলে শেয়ার ও সাবসক্রাইব করুন। সঙ্গে থাকুন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button