প্রাকৃতিক পদ্ধতিতে পোকামাকড় তাড়ানোর উপায়, ঘরবাড়ি করুন ইঁদুর, আরশোলা, টিকিটিকি ও পোকা মুক্ত।

পোকামাকড় তাড়ানোর উপায়
যে বাড়িতে সব সময় পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে চান না এমন লোক খুব কমই আছে বা নেই বললেই চলে। সবাই চায় তার বাড়ি সব সময় চকচকে থাকবে, একটা পোকা মাকড়, আরশোলা এসব থাকবে না কিন্তু নিয়ম করে বাড়ি পরিষ্কার করলেও তাদের আগমন ঠিক হতেই যায়। এরকম পোকামাকড় তাড়ানোর উপায় জেনে নিতে পারেন। যা সব সময় আপনার বাড়ি থেকে পোকামাকড় দূরে রাখতে সাহায্য করবে। এই টোটকা প্রয়োগ করলেও আপনার স্বাস্থ্যহানী করবে না। কারন এই সবকটি উপায় প্রাকৃতিক

Advertisement

একবার এই পোকামাকড় তাড়ানোর উপায় প্রয়োগ করলেই বাড়ি হবে ফাঁকা।

আরশোলা দূর করার উপায়:
বাড়িতে শশা কাটা হলে শসার দুপাশ কেটে ফেলেদি আমরা কিন্তু তা না করে আপনি এই টুকরোগুলোকে বাড়ির এক একটা কোনায় রেখে দিতে পারেন। এতে আরশোলা পালাবে।

Advertisement

ইঁদুর দূর করার উপায়:
ইঁদুর একটি বড় উপদ্রবি প্রাণী। বাড়িতে থাকলে বিভিন্ন আসবাবপত্র, জামাকাপড় এবং প্রয়োজন নথি কেটে সাফ করে দেয়। এই উৎপাত কমাতে আপনি একটি ইঁদুরের প্রবেশ পথে ইঁদুর মারার কল রেখে দিতে পারেন। এতে কোনও কীটনাশক ও লাগবেনা, অথচ ইঁদুর ধরা পড়ে যাবে।

টিকটিকি তাড়ানোর উপায় – এই কাজ করলে আরশোলা টিকটিকি দৌড়ে পালাবে।

পোকামাকড় তাড়ানোর উপায়
১) পোকা তাড়াবার জন্য আপনি ডিপার্টমেন্ট ওয়েল স্প্রে করতে পারেন। অল্প কিছুটা জলের মধ্যে 8 থেকে 10 কোটি ডিপার্টমেন্ট অয়েল মেশিয়ে নিয়ে একটি বোতলে করে স্প্রে করতে পারেন যেখানে পোকামাকড় থাকবে। আপনি ভিনেগারের সাথে পিপারমেন্ট অয়েল মিশিয়ে প্রে করতে পারেন।

২) পোকামাক ও দূর করবার জন্য আপনি পুদিনা পাতাও ব্যবহার করতে পারেন। পুদিনাপাতা বেশ কার্যকরী পোকামাকড় দাঁড়াতে কিছু পরিমাণ পুদিনা পাতা কেটে বিছানার চারপাশে দিয়ে দিন এরপর আর পুদিনা পাতার গন্ধে পোকামাকড় আসবে না।
৩) বাড়ির চারিদিকে বেকিং সোডা দিয়ে রাখতে পারবে বেকিং সোডা একটি জনপ্রিয়। তবে আপনাকে অবশ্যই সপ্তাহে সপ্তাহে এই বেকিং সোডা পাল্টাতে হবে।

রান্নাঘর পরিষ্কার করুন:
আমাদের এই পোকামাকড় তাড়ানোর উপায় গুলির মধ্রাযে এই ধাপটি অত্যন্ত গুরুত্ব পূর্ণ। রান্নাঘর আমাদের স্বাস্থ্য তৈরির কারখানা। সেই জায়গায় যদি অস্বাস্থ্যকর হয় তাহলে আমাদের শরীর ভালো থাকবে কিভাবে? তাই সর্বদা রান্নাঘর ও বেসিন পরিষ্কার রাখা উচিত। সপ্তাহে অন্তত একবার ভালো করে নোংরা জীবাণু সাবান দিয়ে পরিষ্কার করা উচিত।

তাই অবশ্যই রোজ রান্নার পর উচ্ছিষ্ট খাবার ফ্রিজে রেখে দিন এবং রান্নার করার ওভেন বাসনপত্র সব পরিষ্কার করে রাখুন তার বেশিরভাগ আরশোলার মাকড়সা ওইখানে গিয়েই জমা হয় খাবার পাওয়ার লোভে। মাঝে মাঝে এই যখন ছুটি পাবেন বা অবশ্য সময় পাবেন তখন যেসব জিনিস সাধারণত নড়াচড়া করে না সেই গুলিকে ধীরে পরিষ্কার করে রাখুন কর্ম সেই সমস্ত জায়গাতেই এইসব প্রাণীগুলি গিয়ে বাসা বাঁধে।
আরও এই ধরনের পোষ্ট পেতে বাংলার চোখ ওয়েবসাইটের সাথে থাকুন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button