Primary TET – শিক্ষক নিয়োগ মামলায় প্রাথমিক শিক্ষকদের ছাড়পত্র। এই নিয়ম মানলেই বেঁচে যাবে চাকরি।

Primary TET – জানুন কি নিয়ম মানলে পাবেন ছাড়।

প্রাথমিক টিচারদের (Primary TET) নিয়োগ নিয়ে অনেক দিন ধরেই বি এড ও ডি এল এড প্রশিক্ষণ প্রাপ্তদের কাদের চাকরি থাকবে কাদের চাকরি থাকবেনা এই নিয়ে অনেক জল্পনা চলছিল অনেক দিন ধরেই। এরমধ্যে খুশির খবর বি এড পাশ করা শিক্ষক শিক্ষিকাদের। নতুন করে রাজ্য সরকার তাদের পাশে দাড়িয়ে তাদের জন্য নতুন আশার আলো দেখালো। সুপ্রিম কোর্টে কিছুদিন আগে রায় দেওয়া হয়েছিল প্রাথমিক শিক্ষকদের জন্য বি এড পাশ করা শিক্ষকরা গ্রাহ্য হবেনা। অথচ আগের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বি এড পাশ করা শিক্ষক শিক্ষিকারা প্রাথমিক স্কুল টিচার পদে চাকরি করছেন। তাই এমন আচমকা সুপ্রিম কোর্টের রায় শুনে তাদের চাকরি সমন্ধে একটা চাপা উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে।

Advertisement

আদৌ কি চাকরি থাকবে সেই বিষয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে নতুন করে রাজ্য সরকার ঠিক করেছেন বি এড প্রশিক্ষণ নেওয়া শিক্ষক শিক্ষিকাদের জন্য ডি এল এড প্রশিক্ষণ তারা দেওয়ার ব্যবস্থা করে দেবে। যাতে তাদের চাকরি থেকে বাতিল না হতে পারে। সেই দিকেই লক্ষ্য রাখছেন রাজ্য সরকার। রাজ্য সরকারের মত অনুযায়ী জানা যাচ্ছে ২০২৩ – ২০২৪ সালের মধ্যেই এই প্রশিক্ষণ নেওয়ার কাজটি করা হবে।

Advertisement

পশ্চিমবঙ্গে আবার নতুন ছুটি ঘোষণা। সেপ্টেম্বরেই টানা 3 দিন ছুটি পাচ্ছেন সকলে।

জানা গিয়েছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় উদ্যোগ নিয়েছেন প্রতিটি জেলার প্রাথমিক শিক্ষা সংসদের সভাপতি চিঠি দিয়ে জানানো হয়েছে ডি এল এড প্রশিক্ষণ নেই এমন শিক্ষকদের তালিকা। সেই তালিকা অনুযায়ী মিলিয়ে প্রশিক্ষণ দেওয়ার কাজ শুরু করবে রাজ্য সরকার। এই প্রশিক্ষণ নিলে সুপ্রিম কোর্টের রায় অনুযায়ী আর চাকরি যাওয়ার ভয় থাকবেনা।

২০২০ সালের প্রাথমিক টিচার (Primary TET) নিয়োগে ২০ হাজার ৫০০ জন ছাত্র বি এড পাশ করা ছাত্র ছাত্রী প্রথমিক টিচার পদে নিয়োগ করা হয়েছিল। সেই সময় বি এড পাশ করা হলেও প্রাথমিক টিচার হিসাবে গন্য করা হতো। এছাড়া NCTE নিয়ম অনুযায়ী সেই সমস্ত টিচারদের ৬ মাসের মধ্যে ব্রিজ কোর্স করিয়ে নেওয়ার কথা ছিল প্রাথমিক শিক্ষা সংসদের। কিন্ত জানা যায় তারা সেটা করায় নি। তাই সেই বিষয় টাতেও একটা ধোঁয়াশা সৃষ্টি হয়েছে। তাই আচমকা সুপ্রিম কোর্টের রায় সামনে আসতে বি এড পাশ করা টিচারদের জীবন অন্ধকারের মধ্যে ছিল।

পুজোর আগেই 10টি প্রকল্পের সমস্ত টাকা পেয়ে যাবেন রাজ্যবাসী। আপনি পাবেন কিনা দেখুন?

এহেন সময় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এর কথায় কিছুটা স্বস্তির নিশ্বাস পেলেন বি এড প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত প্রাইমারি টিচাররা। এখন তালিকা অনুযায়ী ডি এল এড নেই এমন টিচারদের (Primary TET) কিভাবে কতদিন প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে সেই দিকেই লক্ষ্য রাখছেন রাজ্য সরকার।
আশা করা যাচ্ছে এই নতুন উদ্যোগে বি এড প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত প্রাইমারি টিচাররা নতুন আলোর সন্ধান পাবেন।
Written by Shampa Debnath

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button